Samokal Potrika

আপনার হাতে একটা পত্রিকা এসেছে। কবিতার পাতা ওল্টাচ্ছেন। একটা লেখায় চোখ আটকে গেল !

হালুম ! হুলুম ! ফুটুস !
চাকুম চুকুম উচ্চুঙ্গা হুটু-উ-উ-উ !

আপনিঃ-----ধুস এটা আবার কি মাল রে ! এটাও কবিতা ! মাথামুণ্ডু বলে কিছু নেই। যত্তসব !
*******************************************
এক বন্ধু আপনাকে কোন কবি সম্মেলনে নিয়ে গেছে। বসা মাত্র দেখলেন এক কবি কবিতা পড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন ! তার আগে সেই কবির সঙ্গে দর্শকদের আলাপ করিয়ে দেওয়া হচ্ছে।
এনার কথা আর কি বলব। আর এনার কবিতা ! অসাধারণ বললেও কম বলা হবে। একজন অধ্যাপক হিশেবেও এনার খ্যাতি প্রায় সর্বজনবিদিত। উনি নামকরা ইয়ে ইউনিভার্সিটিতে ২০ বছর ধরে ইয়ে পড়াচ্ছেন। পাঁচ-ছটা ইয়ের উপর ইয়ে করেছেন। আমেরিকার ইয়ে পাবলিশিং থেকে ওনার আট দশটা ইয়ে বেরিয়েছে। হাফ ডজনেরও বেশি ইয়ে সম্মেলনে উনি ভারতের হয়ে ইয়ে করেছেন। এছাড়া বিভিন্ন ইয়েতে ওনার বড় বড় ইয়ে আছে ! এবার উনি ওনার বিশ্ববিখ্যাত ইয়ে কবিতাটি পড়ছেন।

“হালুম ! হুলুম ! ফুটুস !
চাকুম চুকুম উচ্চুঙ্গা হুটু-উ-উ-উ !”

হাততালিতে হল ফেটে পড়ার অবস্থা !
আপনি [হাততালি দিতে দিতে] অসাধারণ ! অসাধারণ ! ভাবা যায় ! আহা কী কবিতা ! সাবাস ! সাবাস !

আমিঃ---এটা কী হল মশাই ! আপনি তো এটাকে কবিতা বলে মানতেই চান নি। গালাগাল পর্যন্ত দিয়েছেন ! আর এখন বলছেন অসাধারণ !
আপনিঃ- না মানে ইয়ে ! মানে হল গিয়ে ইয়ে মানে ! উনি কত বড় ইয়ে !ওনার কত বড় বড় ইয়ে আছে ! নিশ্চয় এটা ইয়ে কবিতা। আমার মাথায় ইয়ে নেই বলে ঠিক ইয়ে করতে পারলাম না।