Samokal Potrika

বহু বছর হয়ে গেলো......

আমি নতূন দিল্লীতে আছি!

তবুও বাঙালিপনাটা না গেল!

এখনও, দুধের কড়া চেঁচে,

খাই চাঁচি!

এখনও, রবীন্দ্রনৃত্যতে, নাচি!

এখনও বেরোবার সময়, পড়লে হাঁচি,

একটু থেমে, দাঁড়িয়ে, তারপরে বের হই!

এখনও চোখ ঝাপসা হোলো, শুনে,

গীতশ্রী সন্ধ্যা মুখার্জী, আর নেই বেঁচে!

এখনও উঠে ভোরে,

শ্রী বীরেন্দ্র কৃষ্ণ বাবুর, মহালয় শুনে,

মন ওঠে ভোরে!

এখনও প্রতি বৃহস্পতিবার, জোরে জোরে,

শ্রী মা লক্ষ্মীর পাঁচালি পড়ে,

তারপরে,

মুখে জল দিই!

এখনও ভোরে,

স্বপ্ন দেখি, হুগলীর, চৈতন্যবাটী গ্রামের,

আমার যুবতী বয়সের শিবেরঘরে,

শিবরাত্রির তরে,

জাগছি রাত্রী!

এখনও দিই,

তাই, আমার দিল্লীর ফ্ল্যাটের ঠাকুরঘরে,

বাতি, চার প্রহরে!

যদিও এখন মিসেস বসেছে আগে নামের!

আগের মত আর নোই, বিয়ের পাত্রী!

এখন আমি উপার্জন করি,

লেখালিখি করে! .......

সৃষ্টি আমার খুব দামের!

মোটা রূপীয়ায়, ব্যাংক একাউন্ট ভরি!

তবুও মনে পরে,

প্রথম প্রকাশিত আমার কবিতা,

যা পড়েছিলাম, স্কুল ম্যাগাজিনের পাতায়!

কবিতাটির নাম ছিল, 

"আমার মায়ের নাম, সবিতা!"

পড়তে বলে সেটি, আমার মাতায়,

আমি নমস্কার করেছিলাম তাঁর শ্রীপায়!

সেটি পড়ে,

আমার মাথায়,

আশিস দিয়েছিলেন,

আমার মাতা!

আর, দুহাতে আমায়,

খুব কাছে টেনে নিয়েছিলেন!

আজ আমার হৃদয়, সেই ভাবনায়,

ভাবায়..........

বার্ধ্যকের, আজকের, আমায়......