Samokal Potrika

সোনালি রিস্টওয়াচটা পরে যখন বাবা বাইরে বেরোত,
বাড়ির জানালা দিয়ে রোজ দেখতাম ছেলেবেলায়।

তখন ঘড়িটার উপর খুব লোভ হত
মনে হত ঘড়িটা পরলে নিশ্চিত কোনও জাদুকাঠি পাওয়া যায়,
এবং বাবা সেই জাদুকাঠি পেয়ে বোধহয়
আমাদের পরিচিত জানালা, ছাদের কার্ণিস ছাড়িয়ে
অনেক দূরে...অনেক দূরের আকাশে ঘুড়ি হয়ে যাচ্ছে।

আর বাবার মুখের হাসিটা ! ... নরম বাতাসে যেন
পতপত করে উড়ছে বাবা... এক বিস্তীর্ণ জগতে।

এভাবে দেখতে দেখতে অন্যমনস্ক কিছু ঋতু পরিবর্তন,
বাবার রিস্টওয়াচটা আমার হাতে।
জাদুকাঠি খুঁজতে গিয়ে জাদুকাঠিও পেয়েছি হাতে,

তবে তাতে অদ্ভুত ভাবে পিছিয়ে গিয়ে সেই বাবাকেই দেখি-

বাবার বুক থেকে একটা সুতো নেমে এসে আষ্টেপৃষ্টে
জড়িয়ে রেখেছে আমাদের বাড়িটাকে,
আর বাবা এলোমেলো বাতাসের ঝাপটা কাটিয়ে
এক অদম্য ইচ্ছেশক্তিতে বজ্র ছুঁয়ে...মেঘ ঠুকরোচ্ছে

আমরা উঠোনে দাঁড়িয়ে বৃষ্টি মাখছি... বৃষ্টি চাটছি...

নীল আকাশের দিকে ছড়িয়ে যাচ্ছে
আমাদের লকলকে সবুজ ডালপালা
                                  ঠিক বাবার স্বপ্নের মত।