Samokal Potrika

কোমলতা যেখানে’ কাব্য হাঁটে,

নীতি বাগিশে আড়ি,

বাবার জন্য আদর্শ বাঁচে,

স্বপ্নরা জমাই পাড়ি ।

কোথাও কখনও বাবাকে নিয়ে জ্যোৎস্না মাখে কেউ?

পুরুষ নিজেই নীতি শুলবিদ্ধ, বাবা হল সেও ।।

 বঞ্চিত ইতিহাসে প্রথম পুরুষ জানি বাবা-

কাব্যগাঁথা নয়, শাসকের সম্ভ্রমে বাঁকা চোখে দেখি।

ঘরে-বাইরে দ্বন্দ্ব সমর কৌশলে সমাধা;

ত্যাগ বশিকরণে রসায়ন হারে, তবু মৌন বাল্মিকি।।

পৃথিবীর বুকে বৃক্ষের মত-

সন্তান সুখে বাবা ,

আবাদ করেন জীবন, নিজের চায়নাকো বাহবা !

তবু ভয় ভয় দুরত্বে দেবতার পুজা, মানুষে নয়,

বাবাও মানুষ রক্ত-মাংসে, তারও মনুস্য ইচ্ছা হয়!

আমরা শুধু বাবা মানে বুঝি, যতটুকু প্রয়োজন,

শুরুতেই থমকে বন্দিশ, বাবা জীবনের নিয়ন্ত্রন!!

মাপা দৃঢ়তায় চাপা স্বভাব, স্বতন্ত্র অধ্যাদেশ’

শৃঙ্খলে বন্দি আদর্শই শেষ শ্রেণী বিশেষ,

নয় কোনও সন্ধি; তারও হৃদয় ভাঙে,

ঝরে চোখের জল, কেমন আছিস তোরা?

দু-পা হাঁটি চল। একক যাপন ভাঙে আড়মোড়া

সেটুকুও কি জোঠে? বঞ্চনা কি নয় অতি?

মধ্যনিশিথে ঘুমহীন একা অন্ধকারে আহুতি।।

কোমলতা যেখানে’ কাব্য হাঁটে, নীতি বাগিশে আড়ি

বাবার জন্য আদর্শ বাঁচে, স্বপ্নরা জমাই পাড়ি

কোথাও কখনও বাবাকে নিয়ে জ্যোৎস্না মাখে কেউ?

পুরুষ নিজেই নীতি শুলবিদ্ধ, বাবা হল সেও ।।