" />

Samokal Potrika

পচাদের পাড়ার প্রথম মুদি দোকানের পরেই মদনদের বাড়ি। মদন নামটা সেকেলে হলে হবে কি, মদন বেশ মর্ডান আর স্মার্ট। বেশ ভালই পড়াশোনা জানা ছেলে। কোন বায়নাক্কা নেই। নেশা ভাঙও নেই। এই যা, বুচির প্রতি একটু দুর্বলতা আছে। আর আছে, সকাল সন্ধ্যা বুড়োর দোকানে লিকার চা আর লেরি বিস্কুট। 

 

     বুচি ওকে ভালোবেসে 'মদনা' বলে ডাকে। সে ডাকে ডাকুক মদনের তাতে আপত্তি নেই। মদন তাতেই খুশি। এই তো সেদিন দেখি হঠাৎ মদন হন্তদন্ত হয়ে সোজা কোথায় যেন যাচ্ছে। লক্ষ্য করি, বুড়োর চায়ের দোকান পেড়িয়ে বড় রাস্তায় দিকে উঠেছে। উঠে বাঁ দিকের গলিটার দিকে ঢুকতে যাবে এমন সময় গলির কোনে বুচির সাথে দেখা। 

 

    মদনকে দেখেই বুচির সেই এক গাল হাসি। যেন গরম তেলে এক রাশ চিকেন ছেড়ে দেওয়া হয়েছে পাকোড়ার জন্য। ঝিরি ঝিরি করে উঠল সে হাসি। মদন সে হাসির গুরুত্ব না দিয়ে ইতস্তত করে বুচিকে বলল "তোর সাথেই দরকার ছিল।" বুচি ঠাট্টার স্বরেই বলল "তাই বুঝি! তা কি দরকার শুনি।"

মদন বদন মুখ খানা নিচু করেই বলল " দ্যাখ,আজ আমায় বলতেই হবে। না বললে সুযোগটা আর পাবই না তোকে বলার।"

 

     বুচি বিজ্ঞের মত বলল "ও,না থাক। আমি জানি,তুই কি বলবি। সেই দিন ওই রেস্তোরাঁর কথা বলবি তো? মদন কিংভূত হয়ে বলল "কোন রেস্তোরাঁ? কি বলছিস যা তা?"

 

     শান্ত স্বরে বুচি বলল "জানিস, আমি জানি। ওটা মটন ছিল না। বাড়িতে আসতে বার কয়েক পেটের মধ্যে 'ম্যাও' ডাক দিতেই বুঝেছি ওটা কি ছিল।"

এ কথা শুনেই ভেজা বেড়ালের মত খ্যাক করে উঠল মদন। "ঠিক আছে। তুই কি ভাবছিস আমি তোকে ইচ্ছে করে খাইয়েছি?" 

"না, না,আমি কি তা এক বারও বলেছি।" বুচি হাই তুলে বলল "আমরা তো একা খাইনি। সবাই তো লুটে পুটে খেয়েছে। আর আমরা খেলেই কি জাত যাবে?"

"আরে না,সে কথা নয়।" মদন বলে উঠল।

মদনকে থামিয়ে দিয়ে বুচি বলল "তবে কি? তুই কি চিকেন পকোড়াটাও সন্দেহ করছিস? 

কি জানি বাবা!"

 

      মদন বোঝানোর চেষ্টা করল সে অন্য কিছু বলতে এসেছে। কিন্তু বারবার বুচির কাছে ব্যর্থ হল। বুচি কচি কচি স্বরে বলে উঠল "শোন মদন,সেই তো সেবার কোল্ড ড্রিংকসের বদলে রাস্তার ধারে বরফ গোলা জল খাওয়ালি। কই তার জন্য কি আমি কিছু বলেছি। তোর সাথে কোন কথা নেই। ঢের হয়েছে তোর সাথে ম্যাও বিরিয়ানি খাওয়া।"

 

      মদন ফুলকপি চাপের মত একটুখানি হেসে বুচির বোচা নাকখানা ছুয়ে বলল "আমার যে তোকে ভীষণ প্রয়োজন। ভীষণ। তুই কি থাকবি না আমার সাথে?"

 

         শুনেই বুচি ফিচ্ ফিচ্ করে হেসে ফেলল। বলল "সত্যি বলছিস?" মদন উত্তেজিত হয়ে এক লাফ দিয়ে উঠে বলল "সত্যি রে। গোটা শহর প্রতিবাদ করছে। আমিও করতে চাই। সঙ্গে তোকে নিয়ে। তুই না হলে তো প্রতিবাদটাই হবে না। সবাই জোড়ায় জোড়ায় প্রতিবাদ করবে।তুই কি শুনিসনি ঐ ঘটনাটা?"

"হম,শুনেছি, শুনেছি। টিভিতে দেখাচ্ছিল। পাশের বাড়ির ট্যাপার মাও বলছিল।"

 

      মদন বেশ খুশি মুডে বলল "এই বার তুই বল, তুই আমার আংশিদার হবি কি না?"

"হবো সত্যি হবো। "একটু সলজ্জ হেসে বুচি বলল। 

"তবে হ্যাঁ, এ প্রতিবাদ যদি লোক দেখানো না হয়, এ প্রতিবাদ যদি তোর, আমাদের প্রতি এই সমাজের প্রতি সারাজীবন থাকে। তবে সারা জীবন পাবি আমায় আংশিদার হিসাবে। কথা দিলাম। শুধু হাতে হাত রেখেই ভালোবাসা প্রকাশ করব আমরা। কি রাজি তো?"

 

      মদন হেসে বলল "তোর ঢেকুর  তোলা ম্যাও বিরিয়ানির দিব্যি, আমি রাজি রাজি রাজি।