১২ বছর বয়সী করিম মিঞার বেটা 

বাপের বুকের মাথা রাখে হায় রে কি কান্না

"বাজান তুই কই গেল, তুই কই গেল বাজান"

" />

Samokal Potrika

 আজ বিহানে যখন নামাজের সুর ভাইসে আস‍্যা

খড়ের ছাউনি দেয়া ঘরত করিম মিঞার লাশটা তখন ঝুলছে ।

তাঁর বেটা আর বিবি যখন ঈদের খুশিত মাতিবার কথা

 তখন করিমের নিথর লাশ আগা করি রাখে শোক পালনে ব্যস্ত

গেরামের বিবি তো সুর টানে টানে কাঁদে আর বলতে থাকে

"কেহ নাহি কেহ নাহি গরীবের জন্যে ফেরেস্তা কাঁথা মুড়ি দিছে রে বেটা"

"আগে জাইনবার পাইলে মোর কানের দুল বেইচা ঈদ মানাইতু।"

"হে আল্লাহ তুই বড় নিঠুর "

১২ বছর বয়সী করিম মিঞার বেটা 

বাপের বুকের মাথা রাখে হায় রে কি কান্না

"বাজান তুই কই গেল, তুই কই গেল বাজান"

বাজান মুই তোর ঠেনা কিছুই চাহনি"

এমন দিনত মইলে করিম কেউই নাই

আখন আছে খালি একটা নিথর লাশ আর দুখান শোকাতুর মানুষ।

শেষ কাজ করিবার মতন মাইনষের যে বড় অভাব

গরীব মাইনষক কে নিয়ে যাবে গোরস্থান?

করিম মিঞা কি আর মরিবার চাহিছিলো বেটা আর ফুটুফুটে বিবিক ছাইরে।

কিন্তুক সেই কবে থেকে করিম বেটা আর বিবিক ঈদে নয়য়া কাপড় দিতে চায়

সেই একটা ছিড়া শাড়ি আর বেটাটা একখান ছিড়া শার্ট পরে বেড়ায়

দিলে না দিলে না বড়লোক মোল্লারা করিমক  বাইচবার দিলে না।

খুটরিত জইমে থয়া টাকা সব নিছিল কাইহরে।

কাপড় দিবা না পারার দুঃখে করিম মিঞা মইরে গেল্।

কিন্তু তাঁর বেটা আর বিবি তো কাপড় চাহিনী,

শুধু মাইগেছিলো কমদামী গরীব ভালোবাসা। 

সেটা করিম মিঞা বুইজবা না পায়ে গরীবের দায়ে মইরে গেল্।।