Samokal Potrika

নিশ্চুপ বাতাস চাপা কান্না সিড়ি বেয়ে এঘর ওঘর,

দেওয়াল বেয়ে টিকটিকি সরসর করে ওঠে

আমি লখ্যই করিনি

দুহাত দিয়ে চোখের ময়লা মুছি,

 

দুটি শিশু ধুলোবালিতে হাসে,না চোখের জল মোঝে, দেখাতেই ভুল।

দুচোখে দেখে কেউ ভেতরে আসেনি

সামনের বাঁকটায় নিশব্দে মোড় নেয়,

স্বার্থতা না আত্মতা হিসাবে বারবার ভুল।

 

যা উষ্ণতা আগুন ছাড়া মোমের গলন টেবিল বেয়ে

রুক্ষ্ম হাওয়ার মাটি আদ্রতার স্পর্শ অনুভব চায়

ততই বাড়ে চাপ মাথার ওপর,

দরদর করে ঘাম পড়ে পাথরের শরীরে,

 

আমিও তো মানুষ আবহাওয়া বুঝি

কোন মেঘে ঝড়,বানভাসি,

তাই ঠোট চেটে চেটে আদ্রতার প্রলেপ মাখি,

আমার সে শক্তি নেই চিৎকার করার

মনে মনে পৌরাণিকস্মৃতি উসকে বুক ভেজাই।

 

লম্বা পথ আলো ছাড়া অনেকেই একাই চলে

তাতে ক্ষতি কি আমার সঙ্গ না এলে

শব্দরা তো আছে,এরাই বলুক জাগার মন্ত্র,

রক্তের বিরুদ্ধে গান।