Samokal Potrika

সেইরাতে একটাও কুকুর ডাকেনি-

রোদের আগুনে ঝলসে যাওযা় বোধ এবং ভাষারা,

নিরন্ন ঘুমের ভিতরে পুডে় গেছে রাবন-গহ্বর ;

ধুলোটে উডো়চুলের বুডি় মা বুঝেছিলো- অনেক আগে

মাটির ভাঙা দেওযা়লে গোবরের ঘুঁটেগুলো আঁকডে় রাখা,

ধু-ধু চেনা পড়শিদের ছাযা়মাথা যেখানে শেষ হয়-

একসারি তালগাছ জীবনের অক্ষরেখাকে

গুনচিহ্ন এঁকে দিযে় চলে গেছে অযুত শূণ্যতায়...

 

একমুঠো ভাত আর একদলা লঙ্কাগুডো় চুরি,

খুব বড় অপরাধ- এই হা-ভাতের দেশে !

হয়ত একটু ইমলি পানিও খুঁজেছিলো- আদিবাসী

ছেলে মধু | অথবা নমক | তার আগে হৈ হৈ করে

ছুটে এসেছিলো যারা, যেন মন্বন্তর নেমেছে দেশে ,

গাছে বেঁধে বেধড়ক লাঠি পেটা , কিল-চড়-ঘুষি,

তীক্ষ্ণ বাক্য- যে ভাষা মধু বোঝেনি,

সে শুধু খিদে বোঝে !

 

ঠোঁটের কোনা ঘেঁষে গডা়নো কষ-রক্ত জমাট,

 

মারা যাবার আগে সে কি একমুঠো ভাত ইমলি পানিতে

লঙ্কাগুঁডো় মেখে খেযে় যেতে পেরেছিলো ?

 

বুডি় মা , রুগ্ন হাতে একটা একটা করে ঘুঁটে নামিযে় আনছে

আজ , এই শ্মশানে চিতা সাজাবে বলে !

 

 

 

                     মুখোশ

 

 

ইদানিং, আমি আর একটাও মুখোশ খুঁজে পাচ্ছিনা,

ঘরে যা কিছু আসবাব, সব তন্নতন্ন করে খুঁজছি-

কোথাও নেই , কোথাও নেই !

চেনা, অচেনা,নাম  জানা  , না জানা,শুধু মুখ চেনা

সবাই দেখলেই হেসে পথ করে দিচ্ছে , এই হাসির

বলয় থেকে বাঁচতে চাই !

 

জলের শরীরে দেখি- অবিকল আমি,

ঠিক আমি নই- আমার রাজনীতি বিষয়ক

নিরপেক্ষতার আডা়লে সবদলের অনুগ্রহ

পাবার মুখোশ , ধর্মনীতি বিষয়ক

আমার পরধর্ম-বিদ্বেষী মুখোশ,মহিলা বিষয়ক

বহুগামী মুখোশ, বন্ধুনীতিতে মধ্যমনি মুখোশ

সব খুলে ফেলছি- একটা মুখোশকে খুঁজে পাবার জন্য,

খুলতে খুলতে আর কোন মুখোশ অবশিষ্ট নেই |

জলের শরীরে ভাসছে- আমার নগ্ন শরীর,

রোগা,পুষ্টিহীন, চোখ বসা, ময়লায় জং ধরা বুক

কোচকানো ত্বক, নিস্তেজ পুরুষাঙ্গ...

আমি নগ্ন,রাস্তায় রঙীন পোষাকের ভিডে়

হেঁটে চলে যাচ্ছি...