Samokal Potrika

আজ দুদিন পেটে কোনো অন্ন পড়ে না!

অনাহারী অনাথের মতো চারদুয়ারে ঘুরেছি,

অনেক বিত্তবানেরা খেয়েছে, রাজকীয় প্রসাদ

কেউ কাছে ডেকে প্লেটের অবশিষ্টটুকুও দেয়নি!

অথচ, ভোজনের সমাপ্তি হলে অমানুষের দলেরা

পরিশিষ্টগুলো ফেলে দিয়েছে নর্দামায়। 

বিচার ঐ রহিম রহমানের দরবারে-

যিনি সৃষ্টিকূলে শ্রেষ্ঠত্বের মর্যাদায় অভিভূত করেছেন 

নরপিশাচের পৈশাচিক আত্মাকে।

একদিন সময় আসবে, রঙের বসুধায়;

সেদিন, মানুষ আর মানুষ থাকবে না!

বাড়ি গাড়ি রাজপ্রাসাদের কোনো গৌরব থাকবে না!

কেউ কারো দিকে তাকাবে না হিংসায়।

অথবা, জীবনের হিসাব কষতে কষতে

কেমন করে যে কার বেলাভূমির সমস্তকিছুর ম্লান হবে,

অবসান হবে অহংকার আর আত্মমর্যাদার।

সে হিসাব মিলাতে গিয়ে কতবার কলম ভেঙে যাবে

কত শত দিস্তা কাগজ ফুরিয়ে যাবে অনায়াসে

অনাথের বুকের তৃষ্ণার্তের হাহাকার যেন

এক অসীম আকাশ পরিমাণ হয়ে দাঁড়াবে সেদিন,

সেই খেয়াল কেবলই রাখা হবে ধনবানদের।

আমার মতো অনাহারী অনাথেরা 

ভেউভেউ করে মরবে চৌরাস্তার তেপান্তরে।