Samokal Potrika

কুয়াশাবনে গাছেরা নেকাব খুলে রাখে অথচ তুমি নিজেকে জড়িয়ে রাখো,

পত্রঝরার দিনে— পাহাড়ের উচ্চতাভীতি জেনে যাওয়া কোন পাখির ছায়ায়।

শীতের বৈঠক থেকে ফিরে, যে পাখি তোমার মধ্যে রোপণ ক'রে দেয় অরণ্য।

আর ঘুম ভেঙে রোদগুলো লাবণ্য কুড়োয়; আছড়ে পড়ে নববিবাহিতার গালে;

সে'খানে গয়নার বাক্সে অনর্গল হয়— শীতার্ত পাখির ভ্রমণরেখা।

 

নিশানায় ছড়িয়ে পড়ো তুমি...

 

দুধের সরের মতো গাঢ় কুয়াশা তোমার স্তন থেকে চুষে নেয় সদ্যজন্ম পাখির ঠোঁট

মানুষগুলো যখন নিজেদের চোখে মধ্যে লুকিয়ে রাখে 'পাখিশিকারি' দৃষ্টি।

 

ভীষণ বর্ষায় ভিজে একসা হওয়া কোন সোমত্ত নদীর ডাকনামে,

তখন তোমার চোখ থেকে উদ্ভাসিত জলের গন্ধে ভিজে যায় সমগ্র পাখি'র গ্রাম।

 

আর শূন্যস্থানের দিকে স'রে যায় সমস্ত লাবণ্যপ্রভা।

ঘুমাক্রান্ত মানুষ— এক ব্যর্থ তীরন্দাজ।